২০২১ সালের সেরা ৪টি ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটপ্লেস
২০২১ সালের সেরা ৪টি ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটপ্লেস বাংলা ব্লগ।

হ্যালো বন্ধুরা কেমন আছেন সবাই? আশা করি সবাই ভালো আছেন। আজকে আমরা কথা বলবো বর্তমান সময়ের জনপ্রিয় ফ্রীল্যান্সিং মার্কেটপ্লেস নিয়ে। তার আগে আমরা একটু জেনে নেই আসলে ফ্রিল্যান্সিং জিনিসটা কি? সংক্ষেপে বলতে গেলে ফ্রিল্যান্সিং এমন একটা জিনিস ঘরে বসে সহজে টাকা ইনকাম করার একটি পন্থা। ফ্রিল্যান্সিং এর মধ্যে অনেক ক্যাটাগরির কাজ আছে। বিদেশি ক্লায়েন্ট বা দেশি ক্লায়েন্টকে কাজ করে দেয়ার মাধ্যমে ইনকাম টা জেনারেট হয়। ফ্রিল্যান্সিংয়ের কাজ করলে আপনার কারও অধীনে কাজ করা লাগে না। ফ্রিল্যান্সিং হচ্ছে একটি মুক্ত পেশা। আপনি আপনার মনের মত করে যেকোনো সময় কাজ করতে পারবেন। যেটাকে আমরা মুক্ত বা স্বাধীন পেশা বলে থাকি।

আমার নাম নয়ন বিশ্বাস। আমি একজন অতি সামান্য মানুষ। পেশায় একজন লেখক, ব্লগার, গ্রাফিক ডিজাইনার এবং ওয়েব ডেভেলপার। – লেখালেখি করতে খুব ভালো লাগে। আমার এই সামান্য প্রয়াসের মাধ্যমে মানুষের কিছু শেখাতে পারা ও বিনোদন দেওয়ার মাধ্যমে আনন্দ খুঁজে পায়। এবং নিজে ও নতুন কিছু সেখার চেষ্টা করি।

ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটপ্লেসে কিছু ক্যাটাগরি সম্পর্কে জেনে নেই।

যেমন:

  • গ্রাফিক্স ডিজাইন।
  • ইউ আই/ইউ এক্স ডিজাইন।
  • ওয়েব ডিজাইন এবং ডেভেলপমেন্ট।
  • ডিজিটাল মার্কেটিং।
  • এসইও।

এরকম হাজারো ক্যাটাগরি রয়েছে। এর ভিতর যে কোন একটা ক্যাটাগরির কাজ শিখে ইনকাম করা সম্ভব।

তাহলে চলুন জেনে নেই সেরা মার্কেটপ্লেস গুলা কি কি।

১। ফাইবার

আমি এক নাম্বারে যে মার্কেটপ্লেসকে কথা বলবো তার নাম ফাইবারফাইবার ওয়ার্ল্ড এর ভিতরে একটি সেরা মার্কেটপ্লেস। এই মার্কেটপ্লেস টির নাম ফাইবার রাখার কারণ এখানে ৫$ দিয়ে প্রজেক্ট শুরু হয়। এই জন্য এখানে ক্লায়েন্ট ও বেশি পাওয়া যায়। এখানে নতুনদের জন্য অনেক কাজ অ্যাভেলেবল থাকে। এই মার্কেটপ্লেসের কিছু মজার কাহিনী হচ্ছে। এখানে ৫$ থেকে ৫০০০$ এর প্রজেক্ট পাওয়া যায়। ফাইবার মার্কেটপ্লেসে অ্যাকাউন্ট খোলা একদম সহজ। এখানে মূলত দুটি উপায়ে কাজ পাওয়া যায়।

১। বায়ার রিকুয়েস্ট এর মাধ্যমে।
২। ক্লায়েন্ট সরাসরি আপনাকে অর্ডার করতে পারবে।

যারা একদম বিগেনার লেভেলের তাদের জন্য এই মার্কেট প্লেস টা আমার মতে বেস্ট হবে।

২। ফ্রিল্যান্সার

ফ্রিল্যান্সার মার্কেটপ্লেস টি ও খুব জনপ্রিয় একটি মার্কেটপ্লেস। এই মার্কেটপ্লেস এর যাত্রা শুরু হয় ২০০৯ সালের প্রায় শেষের দিকে। আমার জানামতে এই সাইটটিতে প্রায় ৩৪ মিলিয়ন রেজিস্টার ফ্রিল্যান্সার কাজ করে। এই মার্কেটপ্লেস টি প্রায় ১০ টির বেশী ভাষায় সেবা দিয়ে থাকে। এবং এখানে একাউন্ট খোলার প্রসেসটা ও খুব সহজ। কোনো রেফার ছাড়া এখানে একাউন্ট খোলা যায়। এবং এটা যে কোন দেশ থেকে খুব সহজে একাউন্ট খোলা যায়। এবং খোলার সাথে সাথে অ্যাকাউন্ট অ্যাপ্রুভ হয়ে যায়। ফাইবারের মত এই মার্কেটপ্লেসে ও নতুনদের জন্য অনেক কাজ অ্যাভেলেবল আছে। এখানে মূলত ৩টি উপায়ে কাজ পাওয়া যায়।

যেমন:

১। বিট করে।
২। কনটেস্ট করে।
৩। এবং ক্লায়েন্ট সরাসরি আপনার সাথে কথা বলে আপনাকে কাজ দিতে পারবে।

আপনি যদি নতুন কাজ শেখেন বা বিগেনার লেভেলের হয়ে থাকেন। তাহলে আমার মতে ফ্রিল্যান্সার এবং ফাইবার আপনার জন্য বেস্ট হবে। সবথেকে বেস্ট হবে ফ্রিল্যান্সার

কারন:

আপনি যখন নতুন কাজ শিখবেন আপনি হয়তোবা অনেক কাজ পারবেন না। অনেক কিছু আপনার অজানা থেকে যাবে। কিন্তু মজার বিষয় হচ্ছে ফ্রিল্যান্সার এ কনটেস্ট করার সুযোগ আছে। এখানে একটা ক্লায়েন্ট একটা জব পোস্ট করলে সেখানে আপনি আপনার ডিজাইনগুলো সাবমিট করতে পারবেন। সেখান থেকে ক্লায়েন্ট আপনাকেও উইন করলে আপনার পারিশ্রমিক আপনি পেয়ে যাবেন। এর সাথে সাথে আপনি অনেক কিছু শিখতে পারবেন। আপনার স্কিলো অনেক ডেভলপ হবে। এজন্য আমি মনে করি প্রতিদিন ফ্রিল্যান্সারে ৩-৫ টি কনটেস্ট করলে আপনার ইস্কিল অনেক ডেভলপ হবে। এবং এক মাসের ভিতরে বা এক দিনের ভিতরে আপনার ইনকাম শুরু হয়ে যাবে।

৩। আপওয়ার্ক

আপওয়ার্ক ওয়ার্ল্ড এর ভিতর অনেক সেরা একটি মার্কেটপ্লেস। এই মার্কেটপ্লেস টির নাম শুনে নাই কোন ফ্রিল্যান্সার বা ক্লায়েন্ট আছে আমার মনে হয় না। বলতে গেলে ফ্রিল্যান্সিংয়ের আইডিয়াটা ১৯৯৮ সালের দিকে এরাই নিয়ে আসে। আপওয়ার্ক হচ্ছে আমাদের আইসিটি বইয়ে পড়া ওডেস্ক এর নতুন নাম। এখানে দুইটি উপায় কাজ পাওয়া যায়।

যেমন:

১। ঘন্টা হিসাব করে।
২। এবং ফিক্সট চুক্তি ভিত্তিক।
মূলত এই দুই উপায়ে আপওয়ার্কে কাজ পাওয়া যায়।

৪। পিপল পার আওয়ার

পিপল পার আওয়ার মার্কেট প্লেস টি ও ফাইবার,আপওয়ার্ক এর চেয়ে কোন অংশে কম নয়। এর নামের সাথে এর কামের মিল রয়েছে। কারণ এখানে ঘণ্টাও চুক্তিভিত্তিক এ দুইটি উপায় কাজ করা হয়। আমার জানা মতে এই মার্কেটপ্লেস টি তে ২ বিলিয়ন এর উপরে ফ্রিল্যান্সার আছে। সব মার্কেটপ্লেসগুলোর মতো এই মার্কেটপ্লেস টি তে ও রেটিং অপশনটা রয়েছে। এই রেটিং অপশনটা একজন ফ্রিল্যান্সারকে জব পেতে অনেক বেশি সাহায্য করে। কিন্তু সব মার্কেটপ্লেস এর মতো এখানেও কাজ পেতে একটু কষ্ট হয়। আর মেইন কথা হচ্ছে আপনার যদি স্কিল না থাকে তাহলে আপনি কোনদিনও কাজ করতে পারবেন না।

এই মার্কেটপ্লেসগুলো বিগেনারদের জন্য অনেক হেল্প ফুল মার্কেট প্লেস। একজন বিগেনার হিসেবে আপনি এখান থেকে যেকোন একটি মার্কেটপ্লেস দিয়ে শুরু করতে পারেন। তবে আমার মতে আপনার জন্য ফ্রিল্যান্সার টা বেস্ট হবে। যদি আপনি নতুন হয়ে থাকেন। কারণ এখানে আপনার স্কিলটা অনেক ডেভলপ হবে। আজকে এই পর্যন্ত। পরবর্তী আর্টিকেলটা অ্যাডভান্স কিছু মার্কেটপ্লেস নিয়ে থাকবে।

আর্টিকেল যদি আপনাদের ভালো লেগে থাকে, তাহলে অবশই আপনার বন্ধু এবং পরিবারের সদস্যের সাথে শেয়ার করবেন।

0 Comments

Submit a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

নিত্য নতুন আপডেট পেতে সাবস্ক্রাইব করে আমাদের সাথে থাকুন।

সাবস্ক্রাইব করে আমাদের সাথে থাকার জন্য আপনাকে ধন্যবাদ!

Pin It on Pinterest

Share This